জাম্বুরা বা বাতাবি লেবুর উপকারিতা আও গুনাবলি

জাম্বুরা বা বাতাবি লেবু স্বাদে টক মিষ্টি। এই ফলের রয়েছে নানান উপকারিতা। এতে রয়েছে ভিটামিন, খনিজ এবং জৈব উপাদান। যার মধ্যে ভিটামিন সি, পটাসিয়াম, ফাইবার, ভিটামিন বি৬ , ম্যাগনেসিয়াম ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য।

জাম্বুরা বা বাতাবি লেবুর উপকারিতা আও গুনাবলি
জাম্বুরা বা বাতাবি লেবুর উপকারিতা আও গুনাবলি

জাম্বুরা বা বাতাবি লেবু, যাই বলি না কেন ফলটি প্রচুর ভিটামিনসমৃদ্ধ একটি ফল। এটা বিভিন্ন জাতের হয়ে থাকে। কোনো জাতের ভেতরে টকটকে লাল । কোনোটির ভেতর আবার সাদা। কোনোটির স্বাদ মিষ্টি আবার কোনোটির স্বাদ টক হয়। বাতাবি লেবু আমাদের দেশ ছাড়াও পার্শ্ববর্তী দেশ যেমন ভারত, চীন, জাপান, ফিজি, এমনকি আমেরিকাতেও উত্পন্ন হয়। স্থানভেদে বাতাবি লেবুর রসালো কোষগুলো হলুদ, লাল ও গোলাপি হয়ে থাকে।

জাম্বুরা বা বাতাবি লেবু এক প্রকার লেবু জাতীয় টক-মিষ্টি ফল। এর ইংরেজি নাম Pomelo (pummelo বা pommelo) এবং বৈজ্ঞানিক নাম Citrus maxima বা Citrus grandis। বিভিন্ন ভাষায় এটি পমেলো, জাবং, শ্যাডক ইত্যাদি নামে পরিচিত। কাঁচা ফলের বাইরের দিকটা সবুজ এবং পাকলে হালকা সবুজ বা হলুদ রঙের হয়। এর ভেতরের কোয়াগুলো সাদা বা গোলাপী রঙের। এর খোসা বেশ পুরু এবং খোসার ভিতর দিকটা ফোম এর মত নরম । লেবু জাতীয় ফলের মধ্যে এটাই সবচেয়ে বড়; যা ১৫-২৫ সেমি ব্যাসবিশিষ্ট হয়ে থাকে। এর ওজন ১-২ কেজি হয়। এর আদিভূমি দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া।

জাম্বুরা বা বাতাবি লেবুর উপকারিতা আও গুনাবলি

জাম্বুরা বা বাতাবি লেবুর গুণাগুণ

প্রতি ১০০ গ্রাম খাদ্যযোগ্য জাম্বুরায় রয়েছে খাদ্যশক্তি ৩৮ কিলোক্যালরি। প্রোটিন ০.৫ গ্রাম। স্নেহ ০.৩ গ্রাম। শর্করা ৮.৫ গ্রাম। খাদ্যআঁশ ১ গ্রাম। থায়ামিন ০.০৩৪ মিলি গ্রাম। খনিজ লবণ ০.২০ গ্রাম। রিবোফ্লেভিন ০.০২৭ মিলি গ্রাম। নিয়াসিন ০.২২ মিলি গ্রাম। ভিটামিন বি২ ০.০৪ মিলি গ্রাম। ভিটামিন বি৬ ০.০৩৬ মিলি গ্রাম। ভিটামিন সি ১০৫ মিলি গ্রাম। ক্যারোটিন ১২০ মাইক্রো গ্রাম। আয়রন ০.২ মিলি গ্রাম। ক্যালসিয়াম ৩৭ মিলি গ্রাম। ম্যাগনেসিয়াম ৬ মিলিগ্রাম। ম্যাংগানিজ ০.০১৭ মিলিগ্রাম। ফসফরাস ১৭ মিলিগ্রাম। পটাশিয়াম ২১৬ মিলিগ্রাম। সোডিয়াম ১ মিলিগ্রাম। জাম্বুরা একটি ভিটামিন সমৃদ্ধ ফল। এর পুষ্টিমান অনেক উন্নত।

জাম্বুরা বা বাতাবি লেবুর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা

জাম্বুরা ঠান্ডা, সর্দি-জ্বর জনিত সমস্যার জন্য খেলে ভাল ফলাফল পাওয়া যায় । এটি শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সহায়তা করে। জাম্বুরাতে বিদ্যমান বায়োফ্লভনয়েড বেশি থাকায় ব্রেস্ট ক্যান্সারের সংক্রমণ থেকে রক্ষা করে। ভিটামিন ‘সি’ বেশি থাকায় রক্তনালির সংকোচন-প্রসারণ ক্ষমতা বৃদ্ধি পাওয়ায় ডায়াবেটিস, জ্বর, নিদ্রাহীনতা, মুখের ভেতরে ঘা, পাকস্থলী ও অগ্ন্যাশয়ের বিভিন্ন রোগ নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে। কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণ করে, সেই সঙ্গে বিভিন্ন ধরনের হৃদরোগের হাত থেকে রক্ষা করে। নিয়মিত জাম্বুরা খেলে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয় ও পেটের নানা রকম হজমজনিত সমস্যার প্রতিকার হয়।

জাম্বুরা বা বাতাবি লেবুর উপকারিতা আও গুনাবলি

জাম্বুরার স্বাস্থ্য উপকারিতা:

১। সুস্বাদু, জাম্বুরা, ক্যালোরি খুব কম, প্রতি ১০০ গ্রাম জাম্বুরায় মাত্র ৪২ ক্যালোরি রয়েছে। ক্যালরি কম থাকায় ডায়াবেটিস ও স্থুলকায়দের জন্য খুবই উপকারী ফল। এটি অদ্রবণীয় ফাইবার ও শালিজাতীয় সমৃদ্ধ। খাবারে কোনো বিষাক্ত দ্রব্য থাকলে এটি তা ধ্বংস করতে সাহায্য করে। এটি ক্যান্সার হতে শ্লৈষ্মিক ঝিল্লীকে রক্ষা করতে সাহায্য করে।
২। জাম্বুরার পেকটিন রক্তে কলেস্টেরলের মাত্রা কমিয়ে দেয় সেইসঙ্গে হৃদরোগের হাত থেকে রক্ষা করে। রক্তের লোহিত কণিকাকে টক্সিন ও অন্যান্য দূষিত পদার্থের হাত থেকে রক্ষা করে বিশুদ্ধ অক্সিজেন পরিবহনে সহায়তা করে।

৩। এ ফলে ভিটামিন-এ এর খুব ভাল মাত্রা রয়েছে (প্রতি ১০০ গ্রামে ১১৫০IU), এছাড়াও এটি অ্যান্টি অক্সিডেন্ট, ফাইবার, বায়োফ্লভনয়েড, পেকটিন বিটা ক্যারোটিন, ম্যাঙ্গানিজের উত্তম উৎস। গবেষণায় দেখা গেছে এই ফলে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বৈশিষ্ট্য আছে যা দৃষ্টিশক্তি বৃদ্ধির জন্য অপরিহার্য উপাদান।

৪। এর ভিটামিন সুস্থ শ্লেষ্মা ঝিল্লি এবং ত্বক সুস্থ ও সুন্দর রাখতে সহায়তা করে। এটি প্রাকৃতিক ভিটামিন-এ সমৃদ্ধ ফল, এবং এর ফ্ল্যাভোনয়েড ফুসফুসের এবং মুখের গহ্বরে ক্যান্সার হুয়া থেকে রক্ষা করে।

৫। বাতাবি লেবুতে আছে বায়োফ্লভনয়েড যা ব্রেস্ট ক্যান্সারের ঝুঁকি থেকে মানুষকে রক্ষা করে। আর এতে বিদ্যমান ভিটামিন সি রক্তনালির সংকোচন-প্রসারণ ক্ষমতা বাড়ায়। ডায়াবেটিস, জ্বর, নিদ্রাহীনতা, মুখের ভেতরের ঘা, পাকস্থলী ও অগ্ন্যাশয়ের বিভিন্ন রোগ নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে। মানব শরীরের অন্যতম একটি নিয়ামক হলো রক্ত। এই রক্ত পরিষ্কারে যথেষ্ট সাহায্য করে বাতাবি লেবু।

৬। প্রতি ১০০ গ্রামে বিটা ক্যারোটিনের পরিমাণ ১২০ মা.গ্রা., ভিটামিন ৬০ গ্রাম, ভিটামিন ‘বি’ও থাকে যা এসিডিটি বা গ্যাস প্রতিহত করে।

৭। রক্ত পরিষ্কারের ক্ষমতা থাকায় দেহে কোনো ধরনের বিষাক্ত উপাদান প্রবেশ করলে ধ্বংস করতে পারে। প্রতিদিন এক গ্লাস করে বাতাবি লেবু জুস করে খেলে ক্যান্সার প্রতিরোধে কাজ করে।

এই ফলে ভিটামিন সি এবং পটাসিয়ামের উচ্চ মাত্রার এটি যকৃত এবং কিডনির রোগীদের জন্য বিপজ্জনক করতে পারে। এছাড়াও, হাইপোটেনশন (নিম্ন রক্তচাপ) রোগীদের রক্তচাপকে উল্লেখযোগ্যভাবে কমিয়ে দিতে পারে।